high quality or low quality article

কিভাবে বুঝবেন একটা আর্টিকেল হাই কোয়ালিটি নাকি লো কোয়ালিটি?

আমরা সবাই জানি কন্টেন্ট ইজ কিং। কিন্তু, সেই কন্টেন্টই যদি লো কোয়ালিটির হয়, তাহলে আপনার সাইটের পথে বসতে বেশিদিন লাগবেনা। আমরা বেশিরভাগই কোনো ফ্রিল্যান্স রাইটার বা এজেন্সি থেকে আর্টিকেল কিনে থাকি।

রাইটার অথবা এজেন্সি থেকে আর্টিকেল পাবার সাথে সাথেই তা ওয়েবসাইটে পাবলিশ করা খুবই রিস্কি। অবশ্যই আর্টিকেলটার কোয়ালিটি চেক করে তবেই তা সাইটে পাবলিশ করা উচিত। যদি মনে করেন আর্টিকেলটা প্রত্যাশিত কোয়ালিটির না, তাহলে রাইটার বা এজেন্সিকে বলুন আর্টিকেলটা রিভাইজ করে দিতে। একজন ভালো রাইটার বা এজন্সি অবশ্যই ক্লায়েন্ট সন্তুষ্ট না হওয়া পর্যন্ত আর্টিকেল রিভাইজ করে দিবে যেমনটা আমরা Writers Motion করে থাকি।

একটা আর্টিকেলের কোয়ালিটি চেক করার জন্য নিচের ব্যপারগুলোর দিকে খেয়াল করুনঃ

আর্টিকেলটা কি ইউনিক?

ফার্স্টেই দেখুন আর্টিকেলটা ইউনিক কিনা। এটা চেক করার জন্য অনেক টুলস্‌ আছে। সবচেয়ে ভালো এবং জনপ্রিয় টুলটি হলো CopyScape. তবে এটি একটি প্রিমিয়াম টুল মানে আপনাকে টাকা দিয়ে ক্রেডিট কিনতে হবে আগে।

আপনি যদি কোনো প্রিমিয়াম টুল ব্যবহার করতে না চান, তবে ফ্রি টুল ব্যবহার করতে পারেন। প্ল্যাগারিজম চেক করার জন্য অনেক ফ্রি টুল আছে। CopyScape এর মতো ভালো না হলেও কাজ চালানো যায়। আমার প্রিয় ৫ টা ফ্রি প্ল্যাগারিজম চেকার টুল নিয়ে একটি আর্টিকেল লিখেছিলাম। চাইলে এখান থেকে দেখে আসতে পারেন।

আর্টিকেল ১০০% ইউনিক না হলে তা এক্সেপ্ট করবেন না। রাইটারকে জানান আর্টিকেল ইউনিক না তো আবার করে দিতে। ইউনিক কন্টেন্ট গুগুল র‍্যাঙ্কিং এর অন্যতম ক্রাইটেরিয়া।

Writers Motion থেকে আর্টিকেল ডেলিভারি করার আগে আমরা সেটা Premium CopyScape দিয়ে চেক করে দেই। তো, আমাদের থেকে আর্টিকেল নিলে আপনাকে আর্টিকেল ইউনিক কিনা তা নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।

আর্টিকেলে কি গ্রামাটিক্যাল ইরর আছে?

গ্রামাটীক্যাল ইরর আর্টিকেল র‍্যাঙ্ক না করার অন্যতম একটা কারণ। রিডাররাও গ্রামাটিক্যাল ইরর কখনো পছন্দ করবে না। এছাড়াও, আর্টিকেলে গ্রামাটিক্যাল ইরর থাকলে ভিজিটরদের কাছে আর্টিকেলটার মান কমে যাবে। তাই, ভালোভাবে চেক করুন আর্টিকেলে গ্রামাটিক্যাল ইরর আছে কিনা তা পাবলিশ করার আগে।

গ্রামাটিক্যাল ইরর চেক করার জন্য অনেক ফ্রি আর পেইড দুই ধরনের টুলই আছে। আমার প্রিয় টুলটি হলো Grammarly. এই আর্টিকেলটায় তিনটা সেরা গ্রামাটিক্যাল ইরর চেকার টুল নিয়ে কথা বলা হয়েছে।

Writers Motion থেকে কোনো আর্টিকেল অর্ডার করলে আপনাকে গ্রামাটিক্যাল ইরর নিয়ে চিন্তা করতে হবে না। আমরা প্রত্যেকটা আর্টিকেল Grammarly দিয়ে চেক করে তবেই ডেলিভার করি।

আর্টিকেলটা কি প্রপারলি ফরম্যাটেড?

রিড্যাবিলিটি একটা ভালো আর্টিকেলের প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলোর একটি। আপনার আর্টিকেলটা প্রপ্রারলি ফরম্যাটেড না হলে সেটি রিড্যাবল হবে না। রিড্যাবল হবে না বলতে বোঝাচ্ছি আপনার আর্টিকেলটা ভিজিটররা পড়ে মজা পাবে না।

এগুলো হলো একটা প্রপারলি ফর্ম্যাটেড আর্টিকেলের বৈশিষ্ট্যঃ

  • আর্টিকেলটা প্রয়োজনীয় সাব-হেডিং থাকবে। সাব হেডিং বলতে বোঝায় আর্টিকেলের প্রত্যেকটা সেকশনের একটি করে টাইটেল থাকবে। যেমন এই আর্টিকেলটার সাব হেডিং গুলো হলোঃ আর্টিকেলটা কি ইউনিক, আর্টিকেলে কি গ্রামাটীক্যাল ইরর আছে, আর্টিকেলটা কি প্রপারলি ফরম্যাটেড। সাব হেডিং খুব কমও থাকা যাবেনা আবার প্রতি দুই লাইন পর পর একটা সাব হেডিং থাকলেও হবে না। যেখানে প্রয়োজন সেখানেই সাব হেডিং দিতে হবে।
  • আর্টিকেলে প্রয়োজনীয় বুলেট পয়েন্ট দিতে হবে। বুলেট পয়েন্ট আর্টিকেলের রিড্যাবিলিটি অনেক গুণে বাড়িয়ে দেয়।
  • আর্টিকেলে সহজ শব্দ যত বেশি পারা যায় ব্যবহার করতে হবে। ভারিক্কি ধরনের শব্দে আর্টিকেল স্মার্ট হলেও আপনার ভিজিটররা সেটা পরে মজা পাবে না। তাই রাইটার কে বলুন, আর্টিকেলে সহজ শব্দ ব্যবহার করতে যেগুলা আমরা দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার করে থাকি।
  • আর্টিকেলে কোনো প্যারাগ্রাফই অনেক বড় করা যাবেনা। বড় প্যারাগ্রাফ পড়তে কারোরই ভালো লাগে না। তাই কোনো বড়ো প্যারাগ্রাফ থাকলে, সেটাকে ভেঙ্গে দুটা প্যরাগ্রাফ করে লেখুন। কোনো প্যরাগ্রাফই ৩-৪ লাইনের বেশি লেখা উচিত না। এতে আর্টিকেলের রিড্যাবিলিটি কমে যায়।

এই ব্যপারগুলো খেয়াল রাখলে আশা করা যায়, আপনি কখনো লো কোয়ালিটির আর্টিকেল কিনে ঠকবেন না।

আমরা Writers Motion এ এই প্রত্যেকটা পয়েন্টের উপর যথাযথ গুরুত্ব দিয়েই আর্টিকেল লিখে থাকি। তাই আমাদের থেকে আর্টিকেল নিলে নিশ্চিত থাকতে পারুন, তা লো কোয়ালিটির হবে না। আর্টিকেল অর্ডার করতে এখানে ক্লিক করুন।