how to get maximum profit from amazon

কিভাবে আমাজন এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে ম্যাক্সিমাম প্রফিট করা যায়?

আমি এই আর্টিকেলে কিছু টিপ্সের কথা বলবো যেগুলো ফলো করলে আপনি আমাজন এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে ম্যাক্সিমাম প্রফিট পেতে পারেন। মূল আর্টিকেলে যাওয়ার আগে বলে নিচ্ছি, কিছু কিছু টিপস হবে Controversial এবং অন্যান্য মার্কেটাররা যা শেখান তার থেকে আলাদা। এগুলো সবই আমার ব্যক্তিগত মতামত এবং আমি এগুলো ফলো করে ভালো রেজাল্ট পেয়েছি। তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করছি।

১। ঠিক প্রোডাক্ট খুজে বের করাঃ

প্রোডাক্ট বাছার সময় প্রথমেই আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে প্রোডাক্টটার Purchasing Duration কতক্ষন হতে পারে। Purchasing Duration বলতে বোঝাচ্ছি, এটা কেনার আগে একজন কাস্টমার কতক্ষন চিন্তাভাবনা করবে, কতক্ষন রিসার্চ করবে। আমরা এমন প্রোডাক্ট নেওয়ার চেষ্টা করবো যেটা কেনার আগে মানুষ অনেক চিন্তা ভাবনা করেনা, সাথে সাথে বা ২৪ ঘন্টার ভেতরেই কিনে ফেলে।

ধরেন আপনি একটা ১০০০ ডলারের প্রোডাক্ট রিকমেন্ড করছেন। অবশ্যই এটা কেনার আগে একজন মানুষ অনেক চিন্তা ভাবনে করবে। আপনার আর্টিকেল পড়েই প্রোডাক্টটা কিনে ফেলবে এর সম্ভাবনা খুব কম। সে আরো অনেক রিসার্চ করবে। তাই আমরা এই ধরনের অনেক দামী প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করবোনা যেগুলা নিয়ে মানুষ অনেক চিন্তাভাবনা রিসার্চ করে তারপর কিনে। এমন কিছু সিলেক্ট করতে হবে যেটার জন্য অনেক বেশি রিসার্চ করার দরকার পড়ে না।

২। প্রোডাক্ট এর প্রাইসঃ

ধরেন আপনি এমন একটা প্রোডাক্ট সিলেক্ট করলেন, যেটার দাম ৪-৫ ডলার। তো এটা সেল করতে পারলে আপনার কমিশন হবে ৩০-৪০ সেন্ট এর মতো।  এমন প্রোডাক্ট থেকে কখনোই আপনি তেমন লাভ করতে পারবেন না। যদি আপনার নিশ এমন হয় যে, এর প্রায় সব প্রোডাক্ট এর প্রাইস খুব কম, তাহলে এই ধরনের নিশ নিয়ে আমাজন এফিলিয়েটের জন্য না আগানোই ভালো হবে। আমি সাধারনত এমন প্রোডাক্ট সিলেক্ট করি যেটার প্রাইস রেঞ্জ ৫০-২০০ ডলারের ভেতরে থাকে।

৩। কমিশন স্ট্রাকচার চেক করা

আমাজনে একেক ক্যাটাগরির প্রোডাক্ট এর কমিশন একেকরকম। তাই কোনো প্রোডাক্ট বা নিশ সিলেক্ট করার আগে অবশ্যই আমাজনে সেটার কমিশন স্ট্রাকচার কি সেটা দেখতে হবে। আমাজন এফিলিয়েটের বর্তমান কমিশন স্ট্রাকচারটা নিচে দেওয়া হলোঃ

amazon affiliate commission structure
Check Current Commision Structure

অনেকেই চায় ল্যাপটপ, কম্পিউটার এসব নিয়ে সাইট বানাতে কারন এগুলার প্রাইস অনেক। কিন্তু দেখেন, PC, PC Components এই ক্যাটাগরির কমিশন মাত্র ২.৫%। তার মানে, আপনি ১০০০ ডলারের একটা PC সেল করে দিলে পাবেন মাত্র ২৫ ডলার। আবার ধরেন কেউ ফার্নিচার নিয়ে সাইট বানালো। এই ক্যাটাগরির কমিশন ৮%। মানে আপনি ৫০০ ডলারের একটা ফার্নিচার সেল করাতে পারলে পাবেন ৪০ ডলার। আশা করি বুঝাতে পেরেছি কমিশন স্ট্রাকচার চেক করে নিশ সিলেক্ট করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ।

[sociallocker]

৪। ইনডাইরেক্ট এপ্রোচ

আমরা যারা আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং করে থাকে, তারা মোটামোটি একটা জিনিস সবাই জানি, রিভিউ আর্টিকেল লিখেই ইনকাম করতে হয়। তাই সাইট বানানোর শুরু থেকে একটার পর একটা প্রোডাক্ট রিভিউ আর্টিকেল, বায়ার গাইড এসব লেখার জন্য সবাই উঠে পড়ে লাগে। এতে কাজ করলেও খুব যে লাভ হয় তা না।

এর কারণ হলো, ম্যাক্সিমাম ক্ষেত্রেই ‘Product name’ + review এই ধরনের কিওয়ার্ডের কম্পিটিশন অনেক বেশি থাকে। তাছাড়া এইধরনের ডাইরেক্ট এপ্রোচ এখন অনেকটাই আগের মতো কাজ করে না।

তাই আমি একটু ইনডাইরেক্ট এপ্রোচ করে প্রোডাক্ট রিকমেন্ড করতে পছন্দ করি।

ধরুন আমি একটা  ‘ABC fishing rod’ রিকমেন্ট করতে চাচ্ছি। এখন এটা রিকমেন্ড করার জন্য ডাইরেক্ট এপ্রোচ হবে ‘ABC fishing rod review’ এমন একটা কিওয়ার্ড নিয়ে আর্টকেল লেখা। কিন্তু তা না করে একটু অন্যভাবে জিনিসটা করা যায়।

আমি যদি একটা আর্টিকেল লিখি ‘How to catch your first fish easily’ এমন একটা কিওয়ার্ডের উপর এবং সেখানে এভাবে লিখি “I used this fishing rod when I caught my first fish. This fishing rod is really robust and can support the weight of any size of fish. Still now it is one of the best fishing gears in my arsenal.” দেখেন, এখানে কিন্তু আমি ডাইরেক্ট ABC fishing rod এর কথা বলিনাই। আমি ‘this fishing rod’ এটকে Anchor Text হিসেবে ব্যবহার করে আমাজনে লিঙ্ক করে দিসি। দেখা গেছে এই ধরনের ইনডাইরেক্ট এপ্রোচে আরো বেশি ভালো রেজাল্ট পাওয়া যায়।

তবে লক্ষ্য রাখতে হবে, শুধু “I use this fishing rod” এমন বলে লিঙ্ক করে দিলেই হবে না। আপনাকে fishing rod টা সেল করতে হবে, মানে হালকা করে এর কিছু গুণগাণ গাইতে হবে যাতে মানুষ fishing rod টা সম্পর্কে জানতে আগ্রহী হয়। এই গুণগাণ গাইতেই আমি “This fishing rod is really robust and can support the weight of any size of fish. Still now it is one of the best fishing gears in my arsenal.” এই অংশটুকু লিখেছি।

আশা করি লেখাটা আপনাদের কাজে লাগবে। ভালো লেগে থাকলে একটা শেয়ার দিতে পারেন। শেয়ার দেখলে আরো লেখার জন্য আগ্রহ পাই আরকি :p

[/sociallocker]

2 thoughts on “কিভাবে আমাজন এফিলিয়েট প্রোগ্রাম থেকে ম্যাক্সিমাম প্রফিট করা যায়?”

  1. Bro, apnar lekha gulo pore oenk kichu sikhte pari. Chesta kori apnar kotha gulo follow korar. Eto sundor sundor idea dewar jonno onek onek thanks. Asa kori samne a rokom aro onek helpful post pabo

    1. ধন্যবাদ ভাইয়া এতো সুন্দর একটা কমেন্টের জন্য!

Comments are closed.